মধুমতির নদীগর্ভে বিলীন ১০টি ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান

Spread the love

বাগেরহাটের চিতলমারীতে মধুমতির করাল গ্রাসে এক রাতে ১০ টি ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। এঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা চরম হতাশার মধ্যে পড়েছেন। যে কোন সময় আরও ভাঙনের আশঙ্কায় রয়েছেন স্থানীয়রা। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার কলাতলা ইউনিয়নের শৈলদাহ বাজারে গত শনিবার দিবাগত রাতে মধুমতি নদীর ভাঙনে বাজার ব্যবস্থানা কমিটির অফিসসহ প্রায় ১০ টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এ ঘটনায় বাজারের ব্যবসায়ী শাহাদাৎ হোসেন, শাহ আলম শেখ, রহমান শেখ, লিন্টু খান ও মোমরেজ খানের প্রায় ১০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। এতেওই ব্যাবসায়ীদের প্রায় এক কোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

নদী ভাঙনের খবর শুনে শনিবার উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোঃ আনোয়ার পারভেজ, কলাতলা ইউপি চেয়ারম্যান সিকদার মতিয়ার রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আনন্দ লাল দত্ত, কলাতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ বাদশা মিয়া শেখসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ব্যপারে কলাতলা ইউপি চেয়ারম্যান সিকদার মতিয়ার রহমান জানান, ভাঙন কবলিত স্থানে প্রাথমিক ভাবে বালুর বস্তা দিয়ে প্রতিরোধের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে ভাঙন রোধে স্থায়ী প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে যে কোন সময় আরো অনেক ঘর-বাড়ী, ব্যাবসা প্রতিষ্টান নদী গর্ভে হারিয়ে যেতে পারে।
উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোঃ আনোয়ার পারভেজ জানান, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভাঙন কবলিত স্থান পরিদর্শন করা হয়েছে। ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্থদের তালিকা করা হচ্ছে। স্থায়ীভাবে ভাঙন প্রতিরোধ কল্পে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। নদী ভাঙন রোধে সিগ্রই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ