সদ্য প্রাপ্ত

প্রতিটি পূজামন্ডপ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তারা পরিদর্শন করবেন: আইজিপি

Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদক: দূর্গা পূজা উৎসব যাতে শান্তিতে উৎদাযাপন করা হয় সে জন্য পুলিশ র‍্যাবের পাশাপাশি আনসার ও থাকবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল এ কে এম শহীদুল হক বিপিএম, পিপিএম এ কে এম শহীদুল হক। এবার ৩০ হাজারের বেশি পূজামন্ডপ রয়েছে।

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭) দুপুর ১:০০ টার সময় পুলিশ সদর দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সাম্প্রতিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সংক্রান্ত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এআইজি (ইন্টেলিজেন্স এন্ড স্পেশাল এ্যাফেয়ার্স) মোঃ মনিরুজ্জামান আশুরা এবং দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে গৃহীত সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা সভায় তুলে ধরেন। সভায় আসন্ন আশুরা এবং দুর্গাপূজার সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

আইজিপি বলেন, অন্যান্ন বছরের তুলনায় দেশে নিরাত্তা বেড়েছে। ফলে মানুষের মধ্যে ধর্মকর্ম পালন বেড়েছে। ২৬ সেপ্টেম্বর দূর্গা পুজা শুরু হবে আর ৩০ সেপ্টেম্বর বিসর্জন। পহেলা অক্টোবর আশুরা দুইটি গুরুত্বপূর্ন অনুষ্ঠান যারা করবেন তাদের মধ্যে যে ভুল বোঝাবুঝি না হয় সেজন্য উভয় পক্ষের সঙ্গে মিটিং করা হয়েছে। আমরা আশুরা উপলক্ষে ছুরি,কাচি ১২ ফিটের বেশি বড় নিশানা না নেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছিল গত বছর তারা সেটা মেনে চলেছিল। নিরাপদ এবং শৃঙ্খলা এই দুইটি বিষয় মাথায় রেখে মিটিং করেছি। প্রতিটি পূজা মন্ডপে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা পরিদের্শন করবেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আইজিপি বলেন, হোসেনী দালান এলাকায় তল্লাশি ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবেনা। এছাড়াও কাউকে ব্যাগ নিয়ে প্রবেশ করতে দেওয়া হবেনা।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, এসবির অতিরিক্ত আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, র্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, ডিএমপি কমিশনার মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া, এপিবিএনের অতিরিক্ত আইজিপি সিদ্দিকুর রহমান, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের অতিরিক্ত আইজিপি মইনুর রহমান চৌধুরী, রেলওয়ে পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি মোহাম্মদ আবুল কাশেম, শিল্পাঞ্চল পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি মোঃ নওশের আলী, জনসংযোগ বিভাগের উপ মহাপরিদর্শক মো. মহাসিন হোসেন, সকল রেঞ্জ ডিআইজি ও মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, সংশ্লিষ্ট জেলার পুলিশ সুপারগণ,গণমাধ্যম ও সহকারী মহাপরিদর্শক সহেলী ফেরদৌসী , জনসংযোগ কর্মকর্তা এ কে এম কামরুল আহছান, বিবি কা-রাওজার আশেকান কমিটির সভাপতি হাজী তোফায়েল আহমেদ, ইমাম বাড়া হোসনী দালানের সুপারিনটেনডেন্ট এস. এম. ফিরোজ হোসেন, পল্টন ইমাম বাড়ার ফাজলে রেজা, বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি জয়ন্ত সেন ও সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট তাপস কুমার পাল ও ঢাকা মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মনীন্দ্র কুমার নাথ ও সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার রায়, এনএসআই, ডিজিএফআই, আনসার ও ভিডিপি, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের প্রতিনিধিগণ।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ