সদ্য প্রাপ্ত

গৃহবধূর বাসায় ঢুকে কোপিয়ে হত্যার চেষ্টায় জড়িতদের গ্রেফতার দাবি

Spread the love
।। নিজস্ব প্রতিনিধি।।
ঢাকা ক্রাইম ডটকম: রাজধানীর পল্টন থানা এলাকায় বাসায় ঢুকে ফারজানা জামান স্মৃতি নামের এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে দৃর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপিসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের জরুরী হস্তক্ষেপের দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ স্মৃতি।
১ অক্টোবর সোমবার সকালে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন (ক্র্যাব) কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানান তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, তার চাচা জুলফিকার পারভেজ।
লিখিত বক্তব্যে গৃহবধূ ফারজানা জামান স্মৃতি জানান, গত ২৫ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তার ৪৩/১, নয়াপল্টনের ৬ তলা ভবনের দ্বিতীয় তলার বাসার রুমে ঢুকে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো বটি দিয়ে কোপায় দুর্বৃত্তরা। হামলাকারীরা হলেন, জেসমিন আরা বেগম, রুহুল আমিন, আবুল হাসেম তালুকদার, মাফুজা বেগম, রামিশা মালিয়া প্রমি, আনিসুর রহমান রিপন, দেলোয়ার, রামিশা মালিয়াত, আলম তালুকদার, মিঠুসহ আরো অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জন দুর্বৃত্ত। এছাড়াও তারা লোহার রড ও লাঠি-সোটা দিয়ে এলোপাথারি পেটাতে থাকে। তার চিৎকার শুনে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে প্রতিবেশিরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।
তিনি আরো জানান, পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া পিতা মৃত. এনায়েত হোসেন খন্দকারের বাড়িতে তিনি দীর্ঘদিনযাবত বাস করে আসছেন। এই বাড়ীটি দখল করার উদ্দেশ্যে পূর্ব থেকেই হামলাকারীরা তার উপরে অত্যাচার চালিয়ে আসছে ও হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এ ব্যাপারে গত ২০১৭ সালে পল্টন থানায় সাধারণ ডায়েরি করায় (জিডি নং-১১৭৭, ১৭/০৫/২০১৭) তারা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। তারা আমার পৈত্রি সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করার চেষ্টা চালানোর উদ্দেশ্যে আদালতে তারা একটি দেওয়ানী মামলা করেন (মামলা নং-১৪৩/২০১৭)। আদালত তার পক্ষে রায় দেন। এরপর থেকেই তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের ক্ষতি করার জন্য কুচক্রিরা চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। সর্বশেষ কুচক্রিরা তাকে হত্যা করতে গত ২৫ সেপ্টেম্বর হামলার ঘটনা ঘটায়।
এ ব্যাপারে পল্টন থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নিয়ে একটি জিডি গ্রহণ করেন (জিডি নং-১৯৪৪, ২৫/০৯/২০১৮ইং)। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও শাস্তির প্রদানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপিসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের জরুরী হস্তক্ষেপের দাবি করেন তিনি।
Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ