সদ্য প্রাপ্ত

ফরিদপুরের বোয়ালমারিতে দুই গ্রুপে সংঘর্ষ: নিহত ১, আহত ৫

Spread the love
।।হেলেনা আক্তা শিমু।।
ঢাকা ক্রাইম ডটকম: ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী উপজেলায় দলীয় কোন্দল ও প্রাধান্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে স্থানীয় কৃষক লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়েছে ৬ জন, এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে নাজিম আলী (১৭) নামের এক তরুণের। গুলিবিদ্ধ হয়েছে আরো ৫ জন। তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক নাজিমকে মৃত ঘোষণা করেন। আহতদের ফরিদপুর  মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ৫ অক্টোবর সকাল ৮টার দিকে জয়পাশা গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয় সূত্র থেকে জানা যায়, দলীয় কোন্দল ও এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী কৃষক লীগের উপজেলা কমিটির আহবায়ক ও বোয়ালমারি উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ আব্দুর রহমান বাশার এবং পরমেশ্বরদী ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি ও ইউপি মেম্বার আবু সাইদ মিয়ার মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছিলো। এক সপ্তাহ পূর্বের একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্বের জের ধরে এই হামলা ও হতাহতের ঘটনা ঘটে। গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত নাজিম আলী ইউপি মেম্বার আবু সাঈদ মিয়ার সমর্থক এবং স্থানীয় জয়পাশা গ্রামের বাসিন্দা ইদ্রিস আলীর ছেলে। গুলিবিদ্ধ আহতদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা হলো, স্থানীয় বাসিন্দা মোশাররফের ছেলে মেজবা আলী (১৮), আনসার আলীর ছেলে রাসেল (২৬) ও আইয়ুব আলীর ছেলে ইমন (১৮)। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। নিহতের পরিবারের সদস্যদের আহাজারিতে এলাকার পরিবেশ ভারি হয়ে উঠেছে।
এ প্রসঙ্গে বোয়ালমারী থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো. শহিদুল ইসলাম জানান, আজ শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে বোয়ালমারী উপজেলার পরশেম্বরদী ইউনিয়নের জয়পাশা গ্রামে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ আব্দুর রহমান বাশারের ও ইউপি সদস্য আবু সাইদ মিয়ার সাথে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত দ্বন্দ্ব চলে আসছিলো।
শুক্রবার সকালে তাদের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে নাজিম আলীর মৃত্যু হয়। সংঘর্ষে আরো ৫ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে।
তিনি আরো জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে বোয়ালমারী থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং আহতদের উদ্ধার করে ও নিহতের মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে এবং জড়িতদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।
Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ