জেএসসি পরীক্ষায় নকলের দায়ে ২ ছাত্র বহিষ্কার

Spread the love

।। মাদারীপুর প্রতিনিধি।।

মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলায় সোমবার অনুষ্ঠিত জেএসসি পরীক্ষায় দুটি কেন্দ্রের দুই ছাত্রকে নকল করার দায়ে বহিষ্কার ও অর্থদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, কালকিনি উপজেলার বাঁশগাড়ি বাটামারা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ইয়াকুব খাসেরহাট সৈয়দ আবুল হোসেন স্কুল এন্ড কলেজ কেন্দ্রে জেএসসি ইংরেজি ২য় পত্রের পরীক্ষা দিচ্ছিল। পরীক্ষার সময় নকল করার দায়ে কালকিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম ওই ছাত্রকে প্রথমে বহিষ্কার ও পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দশ হাজার টাকা অর্থ দণ্ডাদেশ দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত ছাত্র ইয়াকুব বরিশালের মুলাদি উপজেলার বালিয়াতলী গ্রামের মো. দাদন হাওলাদারের ছেলে।

অপরদিকে কালকিনি সৈয়দ আবুল হোসেন একাডেমি স্কুলের ছাত্র আরিফ সরদার কালকিনি সৈয়দ আবুল হোসেন কলেজ কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত জেএসসি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার করে প্রশ্নের উত্তর হলে বসে খাতায় লিখছিল। এ সময় কালকিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাতেনাতে ওই ছাত্রকে ডিভাইসসহ ধরে ফেলে। ডিভাইস ব্যবহার করে ইমুর মাধ্যমে বাইরে প্রশ্ন পাঠিয়ে তার উত্তর সংগ্রহ করে খাতায় লিখছিল। পরীক্ষায় অসৎ উপায় অবলম্বন করায় তাকে বহিষ্কার ও পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দশ হাজার টাকা অর্থ দণ্ডাদেশ দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত ছাত্র আরিফ বরিশালের গৌরনদী উপজেলার খাঞ্জাপুর গ্রামের সরদারের ছেলে।

কালকিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, শতভাগ নকলমুক্ত পরীক্ষা নিতে চাই। এজন্য জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করেছি। পরীক্ষা সংক্রান্ত বিষয়ে কাউকে কোনো ধরনের ছাড় দেয়া হবে না।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ