আসামী প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ দেখছে না

Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীতে মাদক মামলাসহ একাধিক মামলার আসামী প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও তাকে দেখতে পাচ্ছে না স্থানীয় থানা পুলিশ। বরং বিষয়টি জানার পরও ওই আসামীকে প্রশ্রয় দেয়া হচ্ছে। এরই জেরে এলাকায় একচ্ছত্র আধিপত্য কায়েম করেছে ওই আসামীর সহযোগিরা। ঘটনাটি ঘটেছে মিরপুর বিভাগের ভাষানটেক থানা এলাকার পুরাতন কচুক্ষেতে।

জানা যায়, ভাষানটেকের পুরাতন কচুক্ষেত বাজারের সম্রাট ইমুর নামে কাফরুল থানায় একটি মাদক (হেরোইন) মামলা হয় (মামলা নম্বর-২৮, ২৬/০৬/২০১৮ইং)। ওই মামলার এজাহারে হেরোইন উদ্ধার ও ইমুকে পলাতক আসামী করা হয়।

বিষয়টি কাফরুল থানার পক্ষ থেকে ভাষানটেক থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়। কিন্তু ভাষানটেক থানা পুলিশ বিষয়টি চেপে যায় এবং আসামীকে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াতে দেখা গেলেও তাকে গ্রেফতার করা থেকে বিরত থাকে থানা পুলিশ। তবে কি কারণে আসামীকে গ্রেফতার করা হচ্ছে না তা রহস্যের জন্ম দিয়েছে। অপরদিকে, থানা পুলিশের প্রশ্রয় পেয়ে ইমুর স্ত্রী মাহমুদা বেগম, শ্যালক সুজন, তার মা রাঞ্জু বেগম ও আঁখিসহ ১০/১২ জন সহযোগী পুরাতন কচুক্ষেত এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে এবং মাদক ব্যবসা অব্যাহত রেখেছে এবং স্থানীয় এলাকাবাসীদের বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে যেন তাদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ না খোলার সাহস পায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই সম্রাট ইমুর বিরুদ্ধে ক্রিমিনাল অ্যাক্টে ৪ নম্বর জজ কোর্টে গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে অগ্নিসংযোগ করে মালামাল পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে একটি মামলা চলমান রয়েছে (দা: নং ২২৪৯/১২ইং)।

মাদক মামলা প্রসঙ্গে কাফরুল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামীম শিকদার জানান, মাদক মামলা তো প্রতিদিনই হচ্ছে। আসামীরা যে এলাকার বাসিন্দা সে এলাকার স্থানীয় থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করা হয়। তেমনিভাবে ইমু যেহেতু ভাষানটেকের বাসিন্দা সেহেতু স্থানীয় ভাষানটেক থানা পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ