বড় পুুকুরিয়া কয়লা খনি কেলেঙ্কারি: ৭ কর্মকর্তাকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ 

Spread the love
নিজস্ব প্রতিবেদক: আলোচিত দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে কয়লা কেলেঙ্কারির ঘটনায় দায়ের করা মামলায় খনির দায়িত্বপ্রাপ্ত ৭ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।
১৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে সেগুনবাগিচায় অবস্থিত দুদকের প্রধান কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদেরকে তলব করেছিলো দুদক।
দুদক’র পাবলিক রিলেশন্স অফিসার (পিআরও) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি থেকে ২৩০ কোটি টাকার ১ লাখ ৪৪ হাজার টন কয়লা গায়েবের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) আনিসুর রহমান বাদী হয়ে গত ২৪ জুলাই ১৯ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। যার তদন্ত করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। মামলার তদন্তের অংশ হিসেবে প্রতিষ্ঠানটির ৩২ কর্মকর্তাকে তলব করা হয়েছে। খনির মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড কন্ট্রাক্ট ম্যানেজমেন্ট ডিভিশনের উপ-মহাব্যবস্থাপক নাজমুল হককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। দুদক’র উপ-পরিচালক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শামসুল আলম স্বাক্ষরিত চিঠিতে এসব কর্মকর্তাদের নির্ধারিত তারিখে কমিশন কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয়েছিলো। এর মধ্যে ১৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার ৭ জন কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হয়েছে। ৭ কর্মকর্তারা হলেন, খনির মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড কন্ট্রাক্ট ম্যানেজমেন্ট ডিভিশনের উপ-মহাব্যবস্থাপক নাজমুল হক, কোল হ্যান্ডেলিং ম্যানেজমেন্টের ম্যানেজার শোয়েবুর রহমান ও অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার মাহবুব রশিদ, প্রডাকশন ম্যানেজমেন্টের ডেপুটি ম্যানেজার সাঈদ মাসুদ ও অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার মো. মনিরুজ্জামান, মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড অপারেশনের ডেপুটি ম্যানেজার মাহাবুব হোসেন ও ম্যানেজার (স্টোর) দিদারুল কবির।
দুদক সূত্র জানিয়েছে, গত ১৪ আগস্ট কয়লা খনির সাবেক এমডি আমিনুজ্জামান, ইঞ্জিনিয়ার খুরশিদ হাসান, ইঞ্জিনিয়ার কামরুজ্জামান ও সাবেক জিএম (মাইনিং) মিজানুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিলো। গত ১ আগস্ট বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির সাবেক এমডি এসএম নুরুল আওরঙ্গজেবকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুদক। গত সোমবার খনির বর্তমান জিএম (সারফেস ও অপারেশন) সাইফুল ইসলাম সরকারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এছাড়াও সাবেক এমডি মাহবুবুর রহমান ও সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী এবং সাবেক জিএম অ্যাকাউন্টিং (মাইনিং) মীর আব্দুল মতিনকে গত সোমবার দুদকে তলব করা হলেও তারা হাজির না হয়ে সময়ের আবেদন করেছিলেন বলে জানা গেছে। চিঠিতে আগামী ২৮ আগস্ট ৮ জন, ২৯ আগস্ট ৮ জন এবং বাকি ৯ জনকে ৩০ আগস্ট দুদক কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাজির হতে বলা হয়েছে।
২৮ আগস্ট যাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে মাইন অপারেশন বিভাগের ম্যানেজার এটিএম নূর উজ্জামান চৌধুরী, স্টোর ডিপার্টমেন্টের ডেপুটি ম্যানেজার একেএম খালেদুল ইসলাম, মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড অপারেশন বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর মো. মোর্শেদুজ্জামান, প্রডাকশন ম্যানেজমেন্টের ডেপুটি ম্যানেজার হাবিবুবর রহমান, মাইন ডেভেলপমেন্টের ডেপুটি ম্যানেজার জাহেদুর রহমান, ভেন্টিলেশন ম্যানেজমেন্টের অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার সত্যেন্দ্র নাথ বর্মন, সিকিউরিটি ডিভিশনের ম্যানেজার সৈয়দ হাসান ইমাম ও মাইন প্লানিং অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের ডেপুটি ম্যানেজার জোবায়ের আলী।
২৯ আগস্ট জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে, সদ্য সাবেক এমডি হাবিব উদ্দিন আহমদ, কোম্পানি সচিব আবুল কাশেম প্রধানীয়া, ম্যানেজার (এক্সপ্লোরেশন) মোশাররফ হোসেন সরকার, ম্যানেজার (জেনারেল সার্ভিসেস) মাসুদুর রহমান হাওলাদার, ব্যবস্থাপক (প্রডাকশন ম্যানেজমেন্ট) অশোক কুমার হালদার, ম্যানেজার (মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড অপারেশন) আরিফুর রহমান, ম্যানেজার (ডিজাইন অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন) জাহিদুল ইসলাম ও ডেপুটি ম্যানেজার (সেফটি ম্যানেজমেন্ট) একরামুল হক।
৩০ আগস্ট জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে, কোল অ্যান্ড হ্যান্ডলিং ম্যানেজমেন্টের ডেপুটি ম্যানেজার খলিলুর রহমান, সাবেক ডিরেক্টর জেনারেল (অর্থ ও হিসাব) আব্দুল মান্নান পাটোয়ারি, জেনারেল ম্যানেজার গোপাল চন্দ্র সাহা, হিসাব শাখার ব্যবস্থাপক সারোয়ার হোসেন, সেলস অ্যান্ড রেভিনিউ কালেকশন শাখার ম্যানেজার কামরুল হাসান, মার্কেটিং অ্যান্ড কাস্টমার সার্ভিসেসের ডেপুটি ম্যানেজার নোমান প্রধানীয়া, সাবেক জেনারেল ম্যানেজার (প্রশাসন) একেএম সিরাজুল ইসলাম ও শরিফুল ইসলাম এবং সিকিউরিটি ডিভিশনের অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার আল আমিন মিয়া।
Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ