ঢাকাসহ তিন জেলায় “বন্দুকযুদ্ধে” নিহত ৫

Spread the love

ঢাকা ক্রাইম ডেস্ক: রাজধানী ঢাকা, কক্সবাজার ও পাবনায় বন্দুকযুদ্ধে পাঁচজন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। সোমবার  দিবাগত রাতে র‌্যাব ও পুলিশের সঙ্গে এসব ঘটনা ঘটে। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে ডেস্ক রিপোর্ট-

ঢাকা : রাজধানীর রায়েরবাজার বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই ডাকাত সদস্য নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। সোমবার দিনগত রাত তিনটার দিকে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। প্রাথমিকভাবে নিহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের উপ-পরিচালক মেজর রইসুল আজম এ খবর নিশ্চিত করেছেন। নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের মর্গে রাখা হয়েছে।
উখিয়া (কক্সবাজার) : কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলায় র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার শহীদ এটিএম জাফর আলম আরাকান সড়কের মরিচ্যা বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার আব্দুস সামাদ (২৭) ও যশোরের অভয়নগর উপজেলার মো. আবু হানিফ (৩০)।
র‌্যাব-৭ কক্সবাজার ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মেজর মো. মেহেদী হাসান জানান, মরিচ্যা বাজার এলাকায় র‌্যাবের অস্থায়ী চেকপোস্টে গাড়ি তল্লাশি করা হচ্ছিল। এ সময় টেকনাফের দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের চালককে থামার সঙ্কেত দেয়া হয়। এ সময় ট্রাকের চালক পালানোর চেষ্টা করে। র‌্যাব তাদের ধাওয়া করলে তারা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময় র‌্যাব সদস্যরা আত্মরক্ষায়  পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলিতে ট্রাকে থাকা দুই যুবক নিহত হন। তারা চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তাদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে একাধিক মামলা রয়েছে।
সাঁথিয়া (পাবনা) : পাবনার সাঁথিয়ায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক চরমপন্থী দলের নেতা নিহত হয়েছে। সোমবার দিবাগত গত রাত ২টার দিকে আতাইকুলা থানার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের কৈজুরী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত কোরবান আলী আটঘোড়িয়া থানার যাত্রাপুর গ্রামের কিয়ামুদ্দিনের (আবু)। তিনি চরমপন্থী (নকশাল) দলের আঞ্চলিক নেতা। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় হত্যা, ডাকাতিসহ হাফডজন মামলা রয়েছে।
আতাইকুলা থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুদ রানা জানান, সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে থানার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের কৈজুরী গ্রামের শ্মশানের পাশের একটি কাঁঠাল বাগানে একদল সন্ত্রাসী গোপন মিটিং করছিল। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান চালালে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। পরে সন্ত্রাসীরা পিছু হটলে ঘটনাস্থল থেকে আহতাবস্থায় একজনকে উদ্ধার করে পাবনা মেডিকেলে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি রিভালবার, চার রাউন্ড তাজা গুলি ও ২টি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। বন্দুকযুদ্ধে আতাইকুলা থানার এএসআই ফারুক, এএসআই মন্টু, কনস্টেবল শাহিন ও রউফ আহত হন।
Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ