নিউজিল্যান্ডের সৈকতে আটকে পড়ে ১৪৫ তিমির মৃত্যু

Spread the love

।। আন্তর্জাতিক ডেস্ক  ।।

নিউজিল্যান্ডের স্টুওয়ার্ট আইল্যান্ড থেকে দুই কিলোমিটার দূরে সমুদ্র সৈকতে আটকা পড়ে ১৪৫টি তিমির মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সৈকতে হাঁটাহাঁটির সময় এক ব্যক্তি প্রথম তিমিগুলোকে পড়ে থাকতে দেখেন।

বিবিসি জানিয়েছে, ওই ভ্রমণকারী দেখার পর বিষয়টি সরকারি কর্মকর্তাদের জানান। খবর শোনার পরই সেখানে ছুটে যান সরকারি কর্মকর্তারা। তবে উদ্ধারের আগেই অর্ধেক তিমি মারা যায়। বাকিগুলোকেও চেষ্টা করে বাঁচানো যায়নি।

দেশটির ‘ডিপার্টমেন্ট অব কনজার্ভেশন’র(ডিওসি) আঞ্চলিক অপারেশন্স ম্যানেজার রেন লেপেন্স এক বিবৃতিতে বলেন, দুঃখজনকভাবে এসব তিমি তীরে আসার পর আর পানিতে ভেসে যেতে পারেনি। জায়গাটি বেশ দূরবর্তী এবং আশেপাশে কোনও সরকারি কর্মকর্তা না থাকায় তাদের এই পরিণতি হয়েছে।

এদিকে ডিওসি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, নিউজিল্যান্ডের সমুদ্র সৈকতে তিমি ভেসে আসা অস্বাভাবিক কোনও ঘটনা নয়। প্রতিবছর এই ধরনের প্রায় ৮৫টি ঘটনা ঘটে।

সংস্থাটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তিমি ও ডলফিন কেন তীরে ভেসে আসে তা স্পষ্ট নয়। তবে এদের তীরে ভেসে আসার সম্ভাব্য কারণ হতে পারে অসুস্থতা, স্রোতের প্রতিকূলতা, জোয়ার এবং শিকারি সামুদ্রিক প্রাণি।

এদিকে, সপ্তাহ শেষে দেশটির নর্দার্ন আইল্যান্ডের একটি সমুদ্রতীরে ১২টি পিগমি তিমি পড়ে থাকতে দেখা যায়। এগুলোর মধ্যে চারটি মারা গেছে। অবশিষ্ট তিমিগুলোকে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে স্থানীয় সামুদ্রিক স্তন্যপায়ী প্রাণিরক্ষা সংস্থা ‘প্রজেক্ট জেনাহ’।

মঙ্গলবার এগুলোকে সমুদ্রে ছেড়ে দেয়ার পরিকল্পনা করছে বলে জানিয়েছে তারা। এক্ষেত্রে তারা স্বেচ্ছাসেবীদের সহযোগিতাও কামনা করেছে। নর্দার্ন আইল্যান্ডের আরেকটি তীরে শনিবার ১৫ মিটার লম্বা একটি স্পার্ম তিমি মারা গেছে।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ