সাংবাদিক অনিকের উপর হামলার বিচার দাবিতে মানববন্ধন

Spread the love

।। নিজস্ব প্রতিবেদক ।।

ঢাকা ক্রাইম ডটকম: সাংবাদিক আল্লামা ইকবাল
অনিকের উপর হামলাকারী ইউপি চেয়ারম্যানের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচারদাবীতে মানববন্ধন করেছে সাংবাদিকরা।

শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সাধারণ ‘সংবাদ কর্মীদের ব্যানারে’ এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় রাজধানীর বিভিন্ন সংবাদপত্র, টেলিভিশন ও অনলাইন মিডিয়ার শতাধিক সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সাংবাদিকদের উপর প্রতিনিয়ত হামলা হচ্ছে কিন্তু বিচার হচ্ছে না। সারা দেশে সাংবাদিকদের নিরাপত্তাহীনতার সুযোগ নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান অনিকের উপর হামলা চালিয়েছে। সাংবাদিকরা কখনও সন্ত্রাসী কার্যক্রম করে না, কিন্তু জনপ্রতিনিধি হয়ে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ করেছে; এটা রুখে দিতে হবে। আমরা অবাক সাংবাদিকের উপর সামান্য একজন ইউপি চেয়ারম্যান হামলা চালিয়েছে। আমরা জানতে চাই এই ইউপি চেয়ারম্যানের ক্ষমতার উৎস কোথায়? এর আগেও ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল এক নারী মেম্বারকে যৌন হয়রানী ও ইউনিয়ন পরিষদ অফিসে কর্মরত কর্মচারিকে মারধর করেছে। এক সময় বিএনপি জামাত জাতীয় পার্টির নির্বাচন করলেও হঠাৎ ইউপি নির্বাচনের সময় সে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে চেয়ারম্যান হন। এরপর থেকে সে সরকারকে বিব্রত করতে বিভিন্ন সময় অনৈতিক কার্যকলাপ করে চলেছে।

সাংবাদিক নেতারা বলেন, ‘সাংবাদিকের উপর এই হামলা উদ্দেশ্য মূলক। এটা সংবাদপত্র ও সংবাদ পত্রের স্বাধীনতার উপর হামলা। অতিদ্রুত তথাকথিত ওই চেয়ারম্যানকে গ্রেপ্তার করতে হবে, সাথে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। অন্যথায় সাংবাদিক সমাজ বসে থাকবে না। কারণ এরই মধ্যে সাংবাদিকরা রাস্তায় দাঁড়িয়েছে। দ্রুত যদি চেয়ারম্যানকে আইনের আনা হোক। না হলে সাংবাদিকরা রাস্তায় নামলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে।

ঢাকা সাব এডিটর কাউন্সিলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘সহকর্মীর উপর হামলার প্রতিবাদে আমরা আজ রাজপথে দাঁড়িয়েছি। তবে বলতে চাই আপনারা কোথায় হাত দিয়েছেন। গণমাধ্যমকর্মীর উপর হাত দিয়েছেন, সাংবাদিক সমাজ বসে থাকবো না। অতিদ্রুত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হোক না হলে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী সাংবাদিক অনিকের উপর হামলার নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘পেশাদার একজন সাংবাদিকের উপর এমন হামলা এটা খুবই জঘন্য। একজন দুর্বৃত্ত চেয়ারম্যান যে সাহস দেখিয়েছে আমরা তার অপসারণ চাই। কিন্তু প্রশাসন এখনও কোন কার্যকরী ব্যবস্থা নেয়নি। সাংবাদিক সমাজের উপর যেভাবে নির্যাতন চলছে তা রুখতে সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে মাঠে নামার সময় এসেছে। অনিক গ্রামের বাড়িতে গেছে সেখানে একটা মিথ্যা অজুহাতে তার উপর হামলা হয়েছে। সাংবাদিকরা দাবি করেছে এলজিআরডি মন্ত্রীর কাছে ইউপি চেয়ারম্যানকে তার পদ থেকে অপসারণ জন্য। আমরা সাংবাদিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে দাবির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করলাম।

ডিইউজের নির্বাহী পরিষদের সদস্য গোলাম মুজতবা ধ্রুব বলেন, অনিকের পরিবারকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। অনিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করারও চক্রান্ত করা হচ্ছে। যদি এমন কিছু হয়ে থাকে তার ফল ভালো হবে না। সাংবাদিকরা ঘরে বসে থাকবে না।

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে কোমরের বেল্ট খুলে সাংবাদিক আল্লামা ইকবাল অনিককে পেটান কুড়িগ্রামের রাজারহাটের ৩নং ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক। পরে স্থানীয়রা অনিককে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। বর্তমানে সে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। ঘটনার পর দেশের সকল মিডিয়ায় ফলাও করে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন- সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতা জহুর খান, বাংলা ট্রিবিউনের অপরাধ বিষয়ক প্রতিবেদক আমানুর রহমান রনি, সারাবাংলা ডটনেট এর সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট উজ্জল জিসান, ঢাকা ক্রাইম ডটকম এর সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট মো. মাহমুদ হোসাইন, ব্রেকিং নিউজের স্টাফ রিপোর্টার তৌহিদুজ্জামানা তন্ময়, বীকন বাংলার স্টাফ রিপোর্টার মীর্জা রুমন, মোহনা টেলিভিশনের রিপোর্টার মনিরুল ইসলাম মনি প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ