গাবতলীতে ৯৬ টি স্বর্ণের বারসহ পাঁচজন আটক

Spread the love

মো. মাহমুদ হোসাইন: রাজধানীর গাবতলীতে বাস টার্মিনালে অভিযান চালিয়ে ৯৬ টি স্বর্ণের বারসহ  আন্তর্জাতিক স্বর্ণ চোরাচালান চক্রের পাঁচ দেশীয় সদস্যকে আটক করেছে র‍্যাব। আটককৃতরা হলেন, রেজাউল (৩৫), ওলিয়ার (৫০), ওলিয়ার রহমান (৩০), ওহিদুল ইসলাম (৩৪) ও বিল্লাল (৩৫)।

বুধবার (২৯ আগস্ট) বিকেলে কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-২ এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল আনোয়ার উজ জামান এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, পাচারকারী চক্রের একটি গ্রুপ ঢাকা থেকে স্বর্ণ নিয়ে বেনাপোল যাচ্ছে এমন তথ্যে গাবতলীতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় বেনাপোলগামী ঈগল পরিবহনের কাউন্টার থেকে পাঁচজনকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের তল্লাশি করে জুতার ভেতর থেকে ৯৬টি স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। প্রত্যেকটি স্বর্ণের বারের ওজন ১১৬ গ্রাম। সে হিসাবে মোট স্বর্ণের ওজন ১১ কেজি ১৩৬ গ্রাম। যার বাজার মূল্য প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা।

আটককৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, এদের একজনের বাড়ি যশোরের ঝিকরগাছায়, বাকি চারজনের বাড়ি বেনাপোলে। তারা প্রতি সপ্তাহে ঢাকা থেকে দুইবার চালান নিয়ে বেনাপোলে পৌঁছে দিত। প্রতি চালানে জনপ্রতি পাঁচ হাজার টাকা পারিশ্রমিকসহ আরও দুই হাজার টাকা যাতায়ত খরচ পেত।

স্বর্ণগুলো দুবাইসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে ঢাকায় আসে। এরপর তারা সেগুলো বেনাপোলে নিয়ে যেতো। সেখানে অন্যরা রিসিভ করে ভারতে নিয়ে যেত।

তিনি আরও বলেন, একেক সময় একেক জায়গা থেকে স্বর্ণগুলো রিসিভ করা হত। তবে বেশিরভাগ সময় পুরান ঢাকা থেকে স্বর্ণগুলো রিসিভ হয়। পুরান ঢাকা থেকে একজন তাদেরকে স্বর্ণভরা জুতাগুলো সরবরাহ করে, পরে জুতাগুলো পায়ে দিয়ে তারা বেনাপোলে যেত। বেনাপোল পৌঁছার পর একজন ফোন দিয়ে সেগুলো রিসিভ করত।

আটককৃতরা মূলত স্বর্ণের বাহক। তারা একে অপরকে চিনে এবং এদের মধ্যে ওলিয়ার রহমান ও বিল্লাল শালা-দুলাভাই।

যিনি স্বর্ণগুলো তাদেরকে সরবরাহ এবং যিনি রিসিভ করে তাদের বিষয়ে কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। বেশকিছু ফোন নাম্বার হাতে এসেছে। গডফাদারদের আইনের আওতায় আনতে তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

বিষয়টি র‌্যাবের জন্য ব্যতিক্রম উল্লেখ করে তিনি বলেন, র‌্যাব সাধারণত জঙ্গি ও মাদকের মামলা তদন্ত করে। এ মামলাটিও র‌্যাব গ্রহণ করবে। বিমানবন্দরের কেউ জড়িত কি-না সেটি তদন্তের পর জানা যাবে।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ