আ.লীগ বিশাল ব্যবধানে জয়ের পথে!

Spread the love

বিশাল ব্যবধানে জয়ের পথে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ২১টি আসনে আওয়ামী লীগ বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছে। জাগো নিউজের স্থানীয় প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এখন পর্যন্ত ২১ আসনে নৌকার জয়

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষে বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে ফলাফল ঘোষণা করা হচ্ছে। এর মধ্যে ১৫টি আসনের ফল পাওয়া গেছে। এসব আসনে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ ও ১৪ দলীয় জোটের নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা।

জয়ী প্রার্থীরা হলেন

ঢাকা বিভাগ

গোপালগঞ্জ-৩ (কোটালীপাড়া ও টুঙ্গিপাড়া) : শেখ হাসিনা (আওয়ামী লীগ, নৌকা)

রাজশাহী বিভাগ

নাটোর-৩ (সিংড়া) : জুনায়েদ আহমেদ পলক (আওয়ামী লীগ, নৌকা)

নওগাঁ-২ (পত্নীতলা ও ধামইরহাট) : শহিদুজ্জামান সরকার (আওয়ামী লীগ, নৌকা)

নওগাঁ-৬ (আত্রাই ও রানীনগর) : ইসরাফিল আলম (আওয়ামী লীগ, নৌকা)

খুলনা বিভাগ

নড়াইল-২ আসনে দুই লাখ ৭১ হাজার ২১০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী মাশরাফি বিন মর্তুজা।

মেহেরপুর-১ (সদর ও মুজিবনগর) : ফরহাদ হোসেন (আওয়ামী লীগ, নৌকা)।

মেহেরপুর-২ (গাংনী) : সাহিদুজ্জামান খোকন (আওয়ামী লীগ, নৌকা)।

কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) : আ কা ম সরওয়ার জাহান বাদশাহ (আওয়ামী লীগ, নৌকা)।

কুষ্টিয়া-২ (মিরপুর ও ভেড়ামারা) : হাসানুল হক ইনু (মহাজোট, জাসদ-ইনু, নৌকা)।

কুষ্টিয়া-৩ (সদর) : মো. মাহবুব-উল আলম হানিফ (আওয়ামী লীগ, নৌকা)।

কুষ্টিয়া-৪ (কুমারখালী ও খোকসা) : সেলিম আলতাফ জর্জ (আওয়ামী লীগ, নৌকা)।

যশোর-১ (শার্শা) : শেখ আফিল উদ্দিন (আওয়ামী লীগ, নৌকা)।

যশোর-৬ (কেশবপুর) : ইসমাত আরা সাদেক (আওয়ামী লীগ, নৌকা)।

মাগুরা-১ (সদর আংশিক ও শ্রীপুর) : সাইফুজ্জামান শিখর (আওয়ামী লীগ, নৌকা)।

মাগুরা-২ (মোহাম্মদপুর, শালিখা ও সদর আংশিক) : বীরেন শিকদার (আওয়ামী লীগ, নৌকা)।

বাগেরহাট-৩ (রামপাল ও মোংলা) : হাবিবুন নাহার (আওয়ামী লীগ, নৌকা)।

চট্টগ্রাম বিভাগ

কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) : আওয়ামী লীগ প্রার্থী শাহীনা আখতার চৌধুরী বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত।

চট্টগ্রাম-৬ আসনে বিপুল ব্যবধানে জয়ী ফজলে করিম।

বরিশাল বিভাগ

ভোলা-১ আসনে দুই লাখ ৪২ হাজার ১৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী তোফায়েল আহমেদ।

ভোলা-৩ আসনে দুই লাখ ৫০ হাজার ৪১১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী নুরুন্নবী চৌধুরী। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মো. মোসলেহ উদ্দীন পেয়েছেন ৪০৫৫ ভোট।

ভোলা-৪ আসনে ২ লাখ ৯৯ হাজার ১৫০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মো. মহিবুল্যাহ পেয়েছেন ৬২২২।

গোপালগঞ্জে শেখ হাসিনা বিপুল ভোটে বিজয়ী

গোপালগঞ্জ-৩ (টুঙ্গিপাড়া-কোটালীপাড়া) আসনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। মোট ১০৮টি কেন্দ্রের সবকটির ফলাফল পাওয়ার পর রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বেসরকারিভাবে তাকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

ভোটগণনা শেষে জেলা রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ মোখলেসুর রহমান জানান, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে বেসরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়েছে। শেখ হাসিনার প্রাপ্ত মোট ভোট ২ লাখ ২৯ হাজার ৫৩৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির এসএম জিলানী পেয়েছেন ১২৩ ভোট এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী পেয়েছেন ৭১ ভোট।

ইনু-পলক-হানিফ জয়ী

জয় পেয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এছাড়া জয় পেয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ।

কুষ্টিয়া- ২ (মিরপুর ও ভেড়ামারা) আসনে জয়ী হয়েছেন নৌকার প্রার্থী তথ্যমন্ত্রী ও জাসদের (ইনু) সভাপতি হাসানুল হক ইনু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন ধানের শীষের প্রার্থী ২০ দলীয় জোটের জাতীয় পার্টির (জাফর) আহসান হাবীব লিংকন।

কুষ্টিয়া-৩ (সদর) আসনে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মাহবুব-উল-আলম হানিফ। ওই আসনে তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপির জাকির হোসেন সরকার।

নাটোর-৩(সিংড়া) আসনে জয়ী হয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী আওয়ামী লীগের প্রার্থী জুনাইদ আহমেদ পলক। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপির দাউদার মাহমুদ।

রোববার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হয়।

ভোটে কারচুপি, অনিয়ম, জালিয়াতি ও দুর্নীতির অভিযোগ তুলে দেশের ৩০টি আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা নির্বাচন বর্জন করেছেন। ঢাকা-১ আসন, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, হবিগঞ্জ, নাটোর, গাইবান্ধা, জয়পুরহাট, নীলফামারী, শেরপুর, জামালপুর, যশোর, ময়মনসিংহ, রাজবাড়ী, গাজীপুর, খুলনা ও কিশোরগঞ্জ, রাজশাহী, ঠাকুরগাঁও, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, ঝিনাইদহ ও টাঙ্গাইলের বিভিন্ন আসনের প্রার্থীরা নির্বাচন বর্জন করেছেন।

এদিকে, প্রত্যাশা অনুযায়ী নির্বাচন ফলাফল হয়েছে বলে মন্তব্য করেছে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেছেন, গোটা জাতি আজ আনন্দিত। আমাদের প্রত্যাশিত নির্বাচন হয়েছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষে রোববার বিকেল সাড়ে ৫টায় রাজধানীর ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কার্যালয়ে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিক্ষিপ্ত কিছু ঘটনা ঘটেছে। সেসব ঘটনায় ১৬ জন মারা গেছে। এদের ১১ জনই আওয়ামী লীগের কর্মী। দু জন আনসার সদস্য।

বিপুল ভোটের ব্যবধানে জিতলো বদির বউ

কক্সবাজার-৪ আসনে (উখিয়া-টেকনাফ) আওয়ামী লীগ প্রার্থী শাহীনা আখতার চৌধুরী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। দুই উপজেলায় ১০০টি কেন্দ্রের বেসরকারি ফলাফলে শাহীনা আখতার এক লাখ ৬৫ হাজার ২২৩ ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেন।

কক্সবাজারের আলোচিত সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদির স্ত্রী শাহীনা আখতার চৌধুরী দুই লাখ দুই হাজার ২৮২ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের শাহাজান চৌধুরী পেয়েছেন তিন হাজার ৯৫৭ ভোট।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ