নিরপরাধ ব্যক্তিকে পুলিশ হয়রানি করলে কঠোর ব্যবস্থা; আইজিপি

Spread the love

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছেন, মনে রাখবেন কোনো নিরপরাধ ব্যক্তিকে কোনো পুলিশ যদি হয়রানি করে এবং এই ধরনের অভিযোগ আমাদের কাছে আসে তখন কঠোর ব্যবস্থা নেব আমরা।পুলিশের কাজ অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং। যখন আমাদের কাছে কেউ টেলিফোন করেন আমরা ধরে নিই তার কোনো একটি বিশেষ প্রয়োজন রয়েছে। বিশেষ প্রয়োজনে অথবা বিপদে পড়ে ফোন করেছেন। কাজেই যখন কেউ আপনাদের কাছে ফোন করবে, থানায় আসবে, তাকে স্বাগত জানাবেন। তার বক্তব্য শোনার চেষ্টা করবেন। তাকে সময় দেবেন। কারণ এই সেবা দেয়াটা পুলিশের দায়িত্ব।

বুধবার দিনাজপুর পুলিশ লাইন মাঠে অনুষ্ঠিত পুলিশের বার্ষিক সমাবেশ ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা এবং পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

আইজিপি বলেন, যিনি সেবা প্রার্থী তাকে সেবা দেয়া আপনার দায়িত্ব, আপনার কাছ থেকে সেবা পাওয়া তার অধিকার। আপনি হয়তো শতকরা একশটি দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না, সবার সমস্যা একা সমাধান করতে পারবেন না। কিন্তু হাসিমুখে যদি তার সমস্যার কথা শোনেন, তাকে আশ্বস্ত করেন, তার সমস্যাটি সমাধানের চেষ্টা করেন তাহলে সেবাপ্রত্যাশী সন্তুষ্ট হয়ে ফিরে যাবেন। পুলিশের সবার জন্য নির্দেশনা কোনো নিরপরাধ ব্যক্তিকে কোনোভাবেই হয়রানি করবেন না।

তিনি বলেন, আমরা চাই জনগণের পুলিশ হতে, গণ-মানুষের পুলিশ হতে। যেটি বঙ্গবন্ধু ১৯৭৫ সালে পুলিশ সপ্তাহে রাজারবাগে এসে বলেছিলেন, ‘তোমরা জনগণের পুলিশ হও।’ আমরা সেই জনগণের পুলিশ হতে চাই। জন-মানুষের পুলিশ হতে চাই, জনবান্ধব পুলিশ হতে চাই। আমরা যদি জনগণের পুলিশ হতে পারি তাহলেই সম্ভব ভিশন-২০২১ বাস্তবায়ন।

দিনাজপুরের পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য জাকিয়া তাবাসসুম জুঁই, রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য, রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মো. জয়নুল বারী, রংপুর মহানগর পুলিশের কমিশনার আব্দুল আলিম ও দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ