সাংবাদিক সফিউল আলম রাজা আর নেই

Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদক : সাংবাদিক শফিউল আলম রাজা মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫২ বছর। রবিবার (১৭ মার্চ ২০১৯), রাজধানী ঢাকার পল্লবীর সাড়ে ১১ নম্বর সড়ক এলাকায় তার নিজের প্রতিষ্ঠিত ‘কলতান সাংস্কৃতিক একাডেমীর’ একটি রুম থেকে শফিউল আলম রাজার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, গতকাল শনিবার রাতে এশিয়ান টেলিভিশনের একটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ শেষে সফিউল আলম রাজা পল্লবীতে তার নিজের প্রতিষ্ঠিত ‘কলতান সাংস্কৃতিক একাডেমী’র একটি রুমে ফেরেন। আগে থেকেই তিনি রাতে সেখানে থাকতেন। পরে রবিবার দুপুরের দিকে পরিচিতজনরা রুমের বাইরে থেকে তাকে ডাকাডাকি করলেও ভেতর থেকে কোনো সাড়া শব্দ পাচ্ছিল না। তখন ওই রুমের দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, সফিউল আলম রাজার মরদেহ কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলায় নিজ বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানেই তার দাফন সম্পন্ন হবে। সফিউল আলম রাজা সর্বশেষ অনলাইন নিউজ পোর্টাল প্রিয়.কমের প্রধান প্রতিবেদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। রাজা তার স্ত্রী, এক মেয়ে, এক ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী ও আত্বীয়-স্বজন রেখে গেছেন।

শফিউল আলম রাজা ঢাকা রি‌পোর্টার্স ইউ‌নি‌টির (ডিআরইউ) স্থায়ী সদস্য ও সংগঠনটির সাংস্কৃ‌তিক সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি দীর্ঘ ২৫ বছরের সাংবাদিকতা জীবনে দৈনিক জনকণ্ঠ, দৈনিক জনতা, দৈনিক অর্থনীতি, দৈনিক যুগান্তর এবং সর্বশেষ অনলাইন নিউজ পোর্টাল প্রিয়.কমের প্রধান প্রতিবেদক হিসেবে কাজ করেছেন। পেশাগত জীবনেও তিনি সাফল্যের স্বাক্ষর রেখেছেন। সাংবাদিকতায় তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পুরস্কার, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল পুরস্কার, ডেমোক্রিসি ওয়াচ হিউম্যান রাইটস অ্যাওয়ার্ড, ইউনেস্কো ক্লাব এসোসিয়েশন অ্যাওয়ার্ড, ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন অ্যাওয়ার্ডসহ অনেক পুরস্কার ও সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন। সফিউল আলম রাজাকে বিভিন্ন গণমাধ্যমের শ্রোতা-দর্শকরা ‘ভাওয়াইয়া রাজা’ নামে ডাকতেন। সাংবাদিকতার পাশাপাশি একজন ভাওয়াইয়া শিল্পী হিসেবেও তিনি পরিচিত ছিলেন। ভাওয়াইয়া গানের এই শিল্পীর জন্ম কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলায়। কৈশরে পিতা মরহুম নাজমুল হক ও মাতা মরহুমা শামসুন্নাহার বেগমের উৎসাহ এবং অনুপ্রেরণায় তার গান শেখা শুরু। সংগীতে প্রাতিষ্ঠানিক কোনো শিক্ষা গ্রহণ করেননি। তবে ভাওয়াইয়ার কিংবদন্তি-গীতিকার, সুরকার এবং শিল্পী নুরুল ইসলাম জাহিদের কাছে সংগীতের তাত্তিক বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করেছেন রাজা। সফিউল আলম রাজা বাংলাদেশ বেতারের ‘বিশেষ’ ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের ‘প্রথম’ শ্রেণির শিল্পী ছিলেন। এ ছাড়াও তিনি দেশের সব কটি চ্যানেলে নিয়মিত সংগীত পরিবেশন করে আসছিলেন। সংগীত পরিবেশন করছেন বিদেশি বিভিন্ন মঞ্চ এবং মিডিয়াতেও (এরমধ্যে কলকাতার তারা মিউজিক এবং কলকাতা টিভি উল্লেখযোগ্য)। নিজের জন্মস্থান কুড়িগ্রামের চিলমারীর বন্দরে শান্তি নিকেতনের আদলে একটি ভাওয়াইয়া ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠা করার স্বপ্ন দেখতেন সফিউল আলম রাজা।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ