সদ্য প্রাপ্ত
সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে ২৭ ফেব্রুয়ারী বিক্ষোভ সমাবেশ রাজধানীর মহাখালীতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে এক ব্যবসায়ী নিহত! রাজধানীতে আবারো পুলিশী নির্যাতনের স্বীকার দুই সাংবাদিক রাউজানে এক লাখ ৩২ হাজার ভোল্টের টাওয়ারে চূড়ায় যুবক শাহজালালে চার্জার লাইটে স্বর্ণবার; যাত্রী গ্রেফতার সাভারে ছাত্রলীগ নেতা মুক্তারের অস্ত্র ঠেকিয়ে ধর্ষণ র‌্যাবের অভিযানে গাজীপুরে বিদেশী পিস্তলসহ অস্ত্রধারী চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ চক্রের মূল হোতা গ্রেফতার। র‌্যাবের অভিযানে ৪টি বিদেশী পিস্তলসহ শীর্ষ অস্ত্র ব্যবসায়ী গ্রেফতার গাজীপুরে ডাকাত দলের ৪ সদস্য গ্রেফতার মাদক উদ্ধারে বরিশাল বিভাগে আবারো প্রথম স্থানে ঝালকাঠি ডিবি

জনসংখ্যা আমাদের বড় সম্পদ, সমস্যা নয় : প্রধানমন্ত্রী

Spread the love

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, অনেকেই বলে থাকেন আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা জনসংখ্যা। আমি বলি এটা কোনো উদ্বেগের ব্যাপার নয়। যদি তাদের শিক্ষা দিয়ে দক্ষ করে তৈরি করতে পারি তাহলে তারাই হবে আমাদের সবচেয়ে বড় সম্পদ। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। টেকসই উন্নয়নে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার সর্বোত্তম পদ্ধতি-কৌশলসমূহের ওপর পারস্পরিক বিনিময়ে আইডিইবি ও সিপিএসসির উদ্যোগে তিন দিনব্যাপী এ আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে।

সম্মেলনের প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমানে নির্ভরশীল মানুষের সংখ্যা কমেছে। জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনই সরকারের মূল লক্ষ্য। তাই কারিগরি শিক্ষাকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কারিগরি শিক্ষার ওপর গুরুত্ব দিতে নির্দেশ দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। তার গঠিত ড. কুদরত-এ-খোদা শিক্ষা কমিশনেও কারিগরি শিক্ষাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়। বর্তমান সরকার প্রণীত যুগোপযোগী শিক্ষানীতিতেও কারিগরি শিক্ষাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। ২০৪০ সালের মধ্যে কারিগরি শিক্ষায় স্টুডেন্টের হার ৫০ শতাংশে করা বর্তমান সরকারের লক্ষ্য বলে জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের জনসংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে- এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ কর‍া হয়। এটা উদ্বেগ ব্যাপার নয়। যদি তাদের সঠিক শিক্ষা দিয়ে দক্ষ করে তৈরি করতে পারি তাহলে তারাই হবে আমাদের সবচেয়ে বড় সম্পদ। কেননা আগামী দিনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একমাত্র দক্ষ জনশক্তির দ্বারাই সম্ভব। কারিগরি শিক্ষার উন্নয়নে সরকারের নানা পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, জাতির পিতাও জনসংখ্যাকে সম্পদে রূপান্তর করতে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট গড়েছিলেন। বর্তমান সরকারও দেশের বিভিন্ন এলাকায় পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট তৈরি করেছে। নারীদের জন্যেও আলাদা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট করা হয়েছে।

বাংলাদেশে নারীদের জন্যে বিশ্বমানের পলিটেকনিক ইনটিস্টটিউট ছাড়াও প্রতিটি বিভাগীয় শহরে একটি করে মহিলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট গড়ে তোলো হবে। প্রতিটি শহরে একটি করে কারিগরি বিদ্যালয় থাকবে। প্রতিটি উপজেলায় একটি করে টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ স্থাপনের কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তবে সময় বাঁচানোর জন্যে প্রতিটি স্কুল ও কলেজে কারিগরি বিদ্যালয়ের কাজ চালানো হবে। সেখানে শিক্ষকের প্রয়োজন হবে। দক্ষ শিক্ষক নিয়োগ নেওয়‍া হবে। প্রত্যেক জেলায় একটি করে টিটার্স ট্রেনিং কলেজ (টিটিসি) করারও উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ