basic-bank

রাজধানীতে তিন যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার!

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর পল্লবী, মোহাম্মদপুর এবং মুগদা এলাকায় গলায় ফাঁস দিয়ে তিন যুবকের আত্মহত্যা করেছে। এরা হলেন- মাঈনুদ্দীন (২৭) এবং বাকীদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। আজ বৃহস্পতিবার ভোরে সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।
রাজধানীর পল্লবী এলাকায় গতকাল রাতে মাঈনুদ্দীন নামের এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

পল্লবী থানার উপপরিদর্শক ফুয়াদ উদ্দিন বলেন, গতকাল বুধবার রাত নয়টার দি‌কে পল্লবীর ১১ নম্বর সেকশনের, ডি ব্লকের, ২১ নম্বর সড়কের, ২৬ নম্বর বাড়ির ষষ্ঠ তলার দক্ষিণ পাশের ঘর থেকে বাড়ির মালিক মাহবুবুর রহমান পাপ্পুর সনাক্তমতে গামছা দিয়ে ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় মাঈনুদ্দীনের লাশ উদ্ধার করা হয়। তার দাঁতের সঙ্গে জিব্বাহ কামড়ানো অবস্থায় পাওয়া গেছে। মৃত মাঈন্দ্দুীন চট্রগ্রাম জেলার সাতকানিয়া থানার গোয়াজচর গ্রামের নয় নম্বর ওয়ার্ডের আবুল কাশেমের ছেলে।

অপরদিকে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের একটি পার্কের গাছের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মোহাম্মদপুর থানার উপপরিদর্শক মিজানুর রহমান বলেন, আজ বৃহস্পা‌তিবার ভোর রাত তিনটার দি‌কে

মোহাম্মদপুরের মিনার মসজিদের পার্কের সাথে রশি দিয়ে গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়। তার পরনে ছিল ব্লুরংয়ের জিন্সের প্যান্ট ও ব্লুরংয়ের গেঞ্জী। তার বয়স আনুমানিক (২৫) বছর।

এদিকে রাজধানীর মুগদা এলাকায় একটি বাড়ির আম গাছের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মুগদা থানার উপপরিদর্শক ইয়াকুব আলী বলেন, আজ বৃহস্পতিবার ভোর ছয়টার সময়ে মুগদা ৫৮/বি-৩ বশির আহমেদের বাড়ির আম গাছের সঙ্গে লাইলনের রশি দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ উদ্ধার করা হয়। তার পরনে ছিল একটি সাদা রংয়ের সেন্ডো গেঞ্জী ও চেক রংয়ের গামছা। তার বয়স আনুমানিক (২৪)।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তাদের নাম পরিচয় সম্পর্কে কিছু জানাযায়নি। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট থানায় পৃথক তিনটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।