basic-bank

যশোরে সড়ক দুর্ঘটনায় এক ভারতীয় নাগরিক নিহত; আহত ২

মোঃ আসাদুজ্জামান শাওন, যশোর প্রতিনিধিঃ যশোর বেনাপোল সড়কের নাভারণে বাস-প্রাইভেট কার মুখোমুখি সংঘর্ষে স্বপন ঘোষ ওরফে টুনা (৫২) নামে এক ভারতীয় নাগরিক নিহত হয়েছেন।

দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন নিহতের স্ত্রী অঞ্জনা (৪৬), শ্যালিকা কাজল ঘোষ (৪০) এবং প্রাইভেট কার চালক আমজাদ হোসেনসহ (৩৫)।
আহতদের দু’জনকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে এবং আমজাদ হোসেনকে যশোরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদের উন্নত চিকিৎসার্থে ঢাকায় রেফাড করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার সকালে যশোরের শার্শা উপজেলার নাভারণ আকিজ বিড়ি ফ্যাক্টরির পাশে।
নিহত স্বপন ঘোষ, আহত কাজল ও অঞ্জনা ভারতের বনগাঁ জেলার বাসিন্দা।
যশোর জেলা মটর ওয়ার্কাস অ্যাসোসিয়েশনের প্রচার সম্পাদক আবু সাইদ মিন্টু বলেন, ভারতীয় নাগরিক স্বপন ঘোষ, কাজল ও অঞ্জনা শরিয়তপুর জেলার নাড়িয়া গ্রামে এক আত্মীয়ের বাড়ি বেড়াতে এসেছিলেন।

শুক্রবার সকালে তারা একটি প্রাইভেট কার যোগে বাড়ি ফিরতে বেনাপোল সীমান্তে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে যশোর- বেনাপোল সড়কের নাভারণ আকিজ বিড়ি ফ্যাক্টরির সামনে পৌঁছুলে বিপরীতমুখি একটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে প্রাইভেট কারে থাকা স্বপন ঘোষ, কাজল, অঞ্জনা ও ট্যাক্সিচালক আমজাদ আহত হন।
পরে স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে যশোর যশোর জেনারেল হাসপাতাল ও কুইন্স হাসপাতালে ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্বপন ঘোষ মারা যান। আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।

হাসপাতালের সার্জারি ডাক্তার কৌশিক শিকদার ভারতীয় নাগরিক স্বপন ঘোষের মৃত্যু নিশ্চিত করেছেন।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের মহিলা সার্জারি ওয়ার্ডের ইর্ন্টার্ন ডাক্তার লিমা ও ডাক্তার অনন্যা পাল বলেন, কাজল ও অঞ্জনার অবস্থা আশংকাজনক। উন্নত চিকিৎসার্থে তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফাড করা হয়েছে।

যশোর ঝিকরগাছা থানার ওসি মাসুদ করিম বলেন, আমি দুর্ঘটনার কথা শুনেছি। হাইওয়ে পুলিশ বলতে পারবে। আমার বিস্তারিত জানা নেই।
নাভারণ হাইওয়ে ফাঁড়ির ইনচার্জ আফজাল হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার কর বলেন, ঘাতক বাসটি আটক করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।