basic-bank

শরীয়তপুরে প্রেমিকের বিয়ের খবরে প্রেমিকার আত্মহত্যা!

মহসিন রেজা, জেলা প্রতিনিধি: জেলার নড়িয়া উপজেলায় প্রেমিকার সাথে প্রতারনা করে বিয়ে করছে প্রেমিক দাদন মোল্যা খবর জানার পরে হারপিক খেয়ে আত্মহত্যা করেছে প্রেমিকা সুইটি আক্তার।

রবিবার বিকেল ৫টায় নড়িয়া উপজেলার ফতেজঙ্গপুর ইউনিয়নের ভাজনপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, ভাজনপাড়া গ্রামের বিল্লাল হোসেনের মেয়ে সুইটি আক্তার (২১) ও শরীয়তপুর সদর পৌরসভার স্বর্ণঘোষ গ্রামের মৃত সায়দুল হক মোল্যার ছেলে দাদন মোল্যা (২৫) পাঁচ বছর ধরে প্রেম করছেন। তারা দুইজন সম্পর্কে বেয়াই-বেয়াইন।

রবিবার প্রেমিক দাদন মোল্যা অন্যত্র বিয়ে করেছে বলে খবর জানায় প্রেমিক দাদন মোল্লা, প্রেমিকা সুইটিএ খবর শুনে সুইটি হারপিক খেয়ে অসুস্থ হয়ে পরলে
সুইটিকে দ্রুত জেলার সদর হাসপাতালে ভর্তি করে তার পরিবার,
চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধায় সুইটি মারা যায়।

মৃত সুইটি আক্তারের বাবা বিল্লাল হোসেন বলেন, আমার মেয়ে সুইটির সঙ্গে দাদনের পাঁচ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। রবিবার দাদন অন্য জায়গায় বিয়ে করার কথা আমার মেয়েকে জানায়। মেয়ে এ কথা শুনে আত্মহত্যা করেছে, রবিবার রাতে আমি নড়িয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছি। আমি মামলা করবো।

ঘটনার বিষয় স্বীকার করে দাদন মোল্যার চাচা খায়ের মোল্যা বলেন, এ ঘটনা জানার পর দাদন বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে। কোথায় আছে আমি বলতে পারিনা।

শরীয়তপুর সিভিল সার্জন ডা. নির্মল চন্দ্র দাস বলেন, মরদেহের ময়নাতদন্ত শেষ হয়েছে। ময়নাতদন্ত করেছে সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. শেখ মোহাম্মদ এহসান ইসলাম।

সোমবার বেলা ১টার দিকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে সুইটির মরদেহের ময়নাতদন্ত করা হয়েছে।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসলাম উদ্দিন বলেন, সুইটির আত্নহত্যার ঘটনারি আমি জেনেছি।
এ ঘটনায় সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। এ বিষয়ে নিয়মিত মামলা ও আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।