basic-bank

সাংবাদিক লতিফ রানার বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা; ক্র্যাবের নিন্দা ও উদ্বেগ

মোঃ মাহমুদ হোসাইন, ঢাকা ক্রাইম.কম; সংবাদ প্রকাশের জের ধরে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন (ক্র্যাব) এর সাংগঠনিক সম্পাদক ও দৈনিক আমার সংবাদ পত্রিকার সিনিয়র রিপোর্টার আব্দুল লতিফ রানা’র বিরুদ্ধে নোয়াখালীর একটি আদালতে মানহানির অভিযোগ এনে হয়রানিমূলক মামলা দায়েরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ক্র্যাব কার্যনির্বাহী কমিটি।

আজ ২৯ জুলাই ২০১৭ ইং শনিবার ক্র্যাব সভাপতি আবু সালেহ আকন ও সাধারণ সম্পাদক সরোয়ার আলম এক বিবৃতিতে বলেন, ‘মিথ্যা মামলা দায়ের করে একজন পেশাদার সাংবাদিককে হয়রানি স্বাধীন গণমাধ্যমের পরিপন্থী। এতে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও অধিকার রুদ্ধ হয়। এই মামলা দায়েরে আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন ও হতাশ।’ পাশাপাশি ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে মামলাটি দ্রুত প্রত্যাহার ও মামলার নামে আব্দুল লতিফ রানাকে পুলিশ যাতে হয়রানি না করে, সে দাবি জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দ।

বিবৃতিতে নেতারা আরও বলেন, যে সংবাদ প্রকাশের জের ধরে এ মামলার ঘটনা ঘটেছে, ওই প্রতিবেদনে যেসব তথ্য প্রকাশিত হয়েছে- তা তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হউক। আর কোন সাংবাদিককে যাতে এরকম হয়রানির শিকার হতে না হয়- তা নিশ্চিত করতে যথাযথ কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান নেতৃবৃন্দ।‘

প্রসঙ্গত, ‘আমার সংবাদ’ পত্রিকার নোয়াখালী প্রতিনিধির পাঠানো একটি সংবাদে অভিযুক্তদের বক্তব্য না থাকায়, যোগাযোগ করে সেই বক্তব্য নেন আব্দুল লতিফ রানা। এ কারণে ‘নোয়াখালীতে ধর্ষিতাকে জুতাপেটা, ধর্ষককে জরিমানা’ শিরোনামে সম্প্রতি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে নোয়াখালী প্রতিনিধির সাথে যৌথভাবে আব্দুল লতিফ রানার নামও ক্রেডিট লাইনে ছাপা হয়। প্রতিবেদনে স্থানীয় মেম্বার ও চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টরা সালিশ ব্যবস্থার নামে যে অনিয়ম ও অবিচার করেছেন- সেই চিত্র তুলে ধরা হয়। এতে প্রতিশোধপরায়ণ হয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ সংশ্লিষ্টরা ‘নির্যাতিতার’ মাকে দিয়ে গত ১৯ জুলাই নোয়াখালীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মানহানি মামলা দায়ের করান। মামলাটি নোয়াখালী জেলা গোয়েন্দা পুলিশ তদন্ত করছে।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।