শাহজালালে আবারো স্বর্ণসহ বিমানের নিরাপত্তারক্ষী গ্রেফতার

Spread the love

ডেক্স নিউজ; শুল্ক গোয়েন্দার কর্মকতাগণ আজ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ৭৩০ গ্রাম স্বর্ণসহ দুজনকে হাতেনাতে আটক করেছে।

আটক দুইজনের মধ্যে একজন হলেন বাংলাদেশের বিমানকর্মী (বিমান নিরাপত্তা রক্ষী) এবং অপরজন হলেন রিয়াদ হতে ঢাকায় আগত বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স লিঃ এর বিজি০৪০ ফ্লাইটের যাত্রী।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দারা জানতে পারে যে আজ ০৭/১১/১৭ তারিখে রিয়াদ হতে ঢাকাগামী বিমান বাংলাদেশের ফ্লাইট নং বিজি ০৪০ এর মাধ্যমে স্বর্ণ চোরাচালান সংঘটিত হবে।

এর পরিপ্রেক্ষিতে আনুমানিক দুপুর ৩.৩০ ঘটিকা হতে শুল্ক গোয়েন্দার দল বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশনসহ বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নেয়।

আনুমানিক দুপুর ৩:১৫ ঘটিকায় উক্ত বিমান শাহজালাল বিমানবন্দরে অবতরণ করলে শুল্ক গোয়েন্দা তাদের নজরদারি বৃদ্ধি করে এবং বিমান থেকে যাত্রী নামার সময় ঐ যাত্রীকে শনাক্ত করে গোপনে অনুসরণ করতে থাকে।

অনুসরণের একপর্যায়ে রিয়াদ হতে আগত যাত্রীকে ইমিগ্রেশন পয়েন্ট হতে শুল্ক গোয়েন্দা অফিসে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানান বিমানবন্দরে কর্মরত জাকারিয়া নামক একজনের কাছে ০২টি স্বর্ণবার হস্তান্তর করেছে।

পরবর্তিতে তার কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে ইমিগ্রেশন পয়েন্টের সামনে থেকে শুল্ক গোয়েন্দার দল জাকারিয়াকে শনাক্ত করে।

গোপন সংবাদ অনুযায়ী জাকারিয়াকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তার শরীর তল্লাশি করে ০৪ টি স্বর্ণবার উদ্ধার করা হয়। এদের দুজনকেই গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত রিয়াদ ফেরত যাত্রীর পাসপোর্টের তথ্যানুযায়ী তার নাম: মাসুদ রানা, পিতা: ইউসুফ আলি, রামগঞ্জ,লক্ষিপুর।

আটক বিমানকর্মীর অফিসের আইডি কার্ড অনুযায়ী তার নাম: জাকারিয়া, পিতা: আবুল হোসাইন। তার গ্রাম: দেওপুর, পোঃ দেওপুর , থানা: কালিহাতি, জেলা: টাংগাইল।

তিনি বিমানের নিরাপত্তা গার্ড হিসেবে কর্মরত আছেন।বোর্ডিংব্রিজে তিনি ডিউটি পাশ নিয়ে এই স্বর্ণ চোরাচালানে সহায়তা করেন।

আটক দুই ব্যক্তিকে কাস্টমস আগমনি হলের ব্যাগেজ কাউন্টারে আনা হয় এবং বিমানবন্দরে কর্মরত বিভিন্ন সংস্থার উপস্থিতিতে জাকারিয়ার মানিবাগ থেকে খুলে ২৫০ গ্রাম ওজনের ০২টি স্বর্ণবার এবং ১১৬ গ্রাম ওজনের আরো ০২টিসহ মোট ০৪টি স্বর্ণবার (৭৩০ গ্রাম) স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত স্বর্ণবারগুলোর আনুমানিক বাজারমূল্য প্রায় ৩৭,০০,০০০/- (সাইত্রিশ লক্ষ) টাকা।

আটক স্বর্ণ চোরাচালানের বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

চোরাচালানের অভিযোগে গ্রেফতারকৃত এই দুই ব্যক্তিকে বিমানবন্দর থানায় সোপর্দ করা হবে এবং উদ্ধারকৃত স্বর্ণবার রাষ্ট্রীয় গুদামে জমা দেয় হবে।

বাংলাদেশ বিমান ও বিমানবন্দরকে কলুষমুক্ত করতে সরকার দৃঢ় অঙ্গীকারবদ্ধ।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ও দেশের ভাবমূর্তি রক্ষার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন।

শুল্ক গোয়েন্দার কঠোর নজরদারির পরিপ্রক্ষিতে আজ বিমানবন্দরে চোরাচালান করার সময় এই হাতেনাতে গ্রেফতার হলো।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ