গাজীপুরে ডুয়েটে ভাঙচুরের ঘটনায় ৮ শিক্ষার্থীকে বহিস্কার, জরিমানা

Spread the love

মুহাম্মদ আতিকুর রহমান (আতিক), গাজীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ গাজীপুরে ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (ডুয়েট) ভাঙচুরের ঘটনায় আট শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার ও জরিমানা করা হয়েছে।

৭ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে এ সংক্রান্ত নোটিশ ডুয়েটের নোটিশ বোর্ডে টানানো হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র কল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ডঃ মুহাম্মদ কামরুজ্জামান জানান, ডুয়েটের পরীক্ষা পেছানোর দাবিতে গত ৩১ অক্টোবর রাতে ক্যাম্পাসের অফিস ও শিক্ষকদের আবাসিক এলাকায় ভাঙচুর করা হয়।

এ ঘটনার পরদিন ঘটনা তদন্তে ডুয়েটের ডিন অধ্যাপক আবু নঈম শেখকে প্রধান করে সাত সদস্যের এক কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি তদন্ত শেষে বুধবার তাদের রিপোর্ট দেয়। ওই দিনই ডুয়েটের ভিসি প্রফেসর ডঃ আলাউদ্দিনের সভাপতিত্বে ডুয়েটের বোর্ড অফ ডিসিপ্লিনের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় এ ঘটনায় অভিযুক্ত আট শিক্ষার্থীকে একাডেমিক কার্যক্রম ও হল থেকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিস্কার এবং জরিমানা করা হয়েছে।

সাজাপ্রাপ্তরা হলেন- সিএসই দ্বিতীয় বর্ষ প্রথম পর্বের সুমন মিয়া, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং দ্বিতীয় বর্ষ প্রথম পর্বের তুষার চন্দ্র বর্মন, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং দ্বিতীয় বর্ষ প্রথম পর্বের হুমায়ুন কবির রাজু, সিএসই তৃতীয় বর্ষ প্রথম পর্বের রুহুল আমিন, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং তৃতীয় বর্ষ প্রথম পর্বের মোঃ সোলায়মান রাজন, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং তৃতীয় বর্ষ প্রথম পর্বের মোঃ রবিউল ইসলাম, ইলেকট্রিক্যার অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং তৃতীয় বর্ষ প্রথম পর্বের মোঃ সাদ্দাম হোসেন ও মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং দ্বিতীয় বর্ষ প্রথম পর্বের আব্দুর রহমান।

এছাড়া সিএসই বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষ প্রথম পর্বের সুমন মিয়া, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের প্রথম পর্বের তুষার চন্দ্র বর্মন, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষ প্রথম পর্বের হুমায়ুন কবির রাজু, তাদের প্রত্যেককে দুই বছরের জন্য একাডেমিক কার্যক্রম ও হল থেকে আজীবন বহিস্কার এবং তাদের প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ