সদ্য প্রাপ্ত
সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে ২৭ ফেব্রুয়ারী বিক্ষোভ সমাবেশ রাজধানীর মহাখালীতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে এক ব্যবসায়ী নিহত! রাজধানীতে আবারো পুলিশী নির্যাতনের স্বীকার দুই সাংবাদিক রাউজানে এক লাখ ৩২ হাজার ভোল্টের টাওয়ারে চূড়ায় যুবক শাহজালালে চার্জার লাইটে স্বর্ণবার; যাত্রী গ্রেফতার সাভারে ছাত্রলীগ নেতা মুক্তারের অস্ত্র ঠেকিয়ে ধর্ষণ র‌্যাবের অভিযানে গাজীপুরে বিদেশী পিস্তলসহ অস্ত্রধারী চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ চক্রের মূল হোতা গ্রেফতার। র‌্যাবের অভিযানে ৪টি বিদেশী পিস্তলসহ শীর্ষ অস্ত্র ব্যবসায়ী গ্রেফতার গাজীপুরে ডাকাত দলের ৪ সদস্য গ্রেফতার মাদক উদ্ধারে বরিশাল বিভাগে আবারো প্রথম স্থানে ঝালকাঠি ডিবি

যৌতুক না দেয়ায় স্ত্রীর কিডনি বিক্রি!

Spread the love

যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় এক স্বামী তার স্ত্রীর অজ্ঞাতসারে একটি কিডনি বিক্রি করে দিয়েছে। স্ত্রী রিতা সরকারের কাছ থেকে এমন অভিযোগ আসার পর স্বামী ও তার ভাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মানব অঙ্গ ও টিস্যু প্রতিস্থাপন আইনের আওতায় এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। হত্যা চেষ্টা ও স্ত্রী নির্যাতনের অভিযোগও আনা হয়েছে তিনজনের বিরুদ্ধে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে এ ঘটনা ঘটে। যদিও দেশটিতে ১৯৬১ সাল থেকে যৌতুক নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, দুই বছর আগে পেটে ব্যথা হওয়ার পর ওই নারীর স্বামী তার অ্যাপেন্ডিসাইটিস অপারেশনের ব্যবস্থা করেন। পরে ২০১৭ সালে মেডিকেল পরীক্ষায় ধরা পড়ে রিতা সরকারের দুটি কিডনির মধ্যে একটি কিডনি নেই।

ভারতীয় গণমাধ্যমকে রিতা সরকার জানান, বেশ কয়েক বছর ধরেই তার স্বামী যৌতুক দাবি করে আসছিলেন এবং এই ইস্যুতে তিনি বিভিন্ন সময় তাকে পারিবারিক ভাবে নির্যাতন করা হয়েছে।

হিন্দুস্তান টাইমস ওই নারীকে উদ্ধৃত করে লিখেছে- আমার স্বামী আমাকে কলকাতার একটি বেসরকারি নার্সিং হোমে নিয়ে যায়। সেখানে সে ও মেডিকেল স্টাফ আমাকে জানায়- আমার ফুলে ওঠা অ্যাপেন্ডিক্স অপারেশনের মাধ্যমে সরিয়ে ফেলা হলে আমি সুস্থ হয়ে উঠব। এমনকি আমার স্বামী আমাকে সতর্ক করেছিল- আমি যেন এই অপারেশনের বিষয়ে কলকাতায় কারও সাথে আলাপ না করি।

কয়েক মাস পর তিনি অসুস্থ বোধ করলে তার পরিবারের অন্য সদস্যরা তাকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান। তিনি বলেছেন, এরপরই ধরা পড়ে তার ডান পাশের কিডনি নেই। দ্বিতীয়বার পরীক্ষাতে বিষয়টি নিশ্চিত হয়।

হিন্দুস্তান টাইমসকে ওই নারী বলেছেন, এরপর আমি বুঝতে পারি আমার স্বামী কেন আমাকে ওই অপারেশনের বিষয়ে চুপ থাকতে বলেছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ