বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে উটপাখির নতুন তিন ছানা

Spread the love

মুহাম্মদ আতিকুর রহমান (আতিক), গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি: গাজীপুরের শ্রীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে দ্বিতীয়বার বাচ্চার জন্ম দিয়েছে মরুভূমি অঞ্চলের উটপাখি। ৮টি ডিম থেকে ১৯ মার্চ সোমবার একটি ও ২১ মার্চ বুধবার দুটি ছানা ডিম থেকে বের হয়েছে। তিনটি ছানাই এখন সুস্থ রয়েছে।

পার্কের বন্যপ্রাণী পরিদর্শক মোঃ সরোয়ার হোসেন খান জানান, ২০১৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আড়াই বছর বয়সী ৬টি উটপাখি আনা হয়। এর মধ্যে ২টি পুরুষ ও ৪টি স্ত্রী পাখি ছিল। পরে ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসের ১৬ তারিখে দেশে প্রথমবারের মতো উটপাখি থেকে একটি ছানা পাওয়া যায়। বর্তমানে নতুন তিনটি ছানাসহ পার্কে উটপাখির সংখ্যা দাঁড়ালো ১০টিতে।

তিনি আরো জানান, মা উট পাখি মোট ৮টি ডিম নিয়ে বসে তাতে তাপ দেয়। প্রায় ৪০দিন ওই ৮টি ডিমে তাপ দেয়ার পর তিনটি ডিম ফুটে বাচ্চা বের আসলেও বাকিগুলো থেকে এখনো বাচ্চা পাওয়া যায়নি। আশা করা যাচ্ছে বাকি ডিমগুলো থেকেও বাচ্চা পাওয়া যাবে। পার্কের দর্শনার্থীদের কাছ থেকে নতুন বাচ্চাগুলো মা উটপাখিকে বেষ্টনীর এক পাশে বিশেষ ব্যবস্থায় রাখা হয়েছে। বাচ্চা ও মা উটপাখিকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

পার্কের অপর বণ্যপ্রাণী পরিদর্শক আনিসুর রহমান জানান, আকারে সবচেয়ে বড় উটপাখি আবদ্ধ অবস্থায় ৬০ বছর বেঁচে থাকে। আর প্রকৃতিতে ৪০ থেকে ৪৫ বছর বাঁচে। এদের ওজন হয় প্রায় ৬৫ কেজি থেকে ১৪৫ কেজি পর্যন্ত। এরা ঘণ্টায় ৭০ কিলোমিটার গতিতে দৌঁড়াতে পারে।

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোতালেব হোসেন বলেন, সাফারি পার্কে মরুর দেশের উটপাখির ডিম ফুটে বাচ্চা জন্মের ঘটনায় আশা তৈরি হয়েছে। ইতিমধ্যে প্রথম বাচ্চাটি দেশীয় পরিবেশে সবদিক থেকে অন্যান্য উটপাখির চেয়ে আকর্ষণীয় হিসেবে বেড়ে উঠছে। ভবিষ্যতে উটপাখি থেকে আরো বাচ্চা আশা করা যাচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ