basic-bank

বিষাক্ত ডিম নিয়ে ইউরোপে তোলপাড়

বেলজিয়ামের কর্মকর্তারা স্বীকার করেছেন, নেদারল্যান্ডসের ফার্ম থেকে পাঠানো ডিমে বিষ থাকতে পারে, যা কীটনাশক জাতীয় বিষ হতে পারে, এমনটি তারা জুন মাসেই জানতেন।

কিন্তু বিষয়টি গোপন রাখা হয়েছিল।

যদিও জালিয়াতির আশংকা মাথায় রেখে তদন্তের কাজ শুরু করেছিল কর্তৃপক্ষ।

দেশটির খাদ্য নিরাপত্তাবিষয়ক সংস্থার মুখপাত্র ক্যাটরেইন স্ট্রাগিয়ার জানিয়েছেন, ডিমে ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ ফিপ্রোনিল থাকার বিষয়টি গত জুন থেকেই জানা যায়।

তখন এ বিষয়টি প্রকাশ না করে দ্রুত তদন্ত শুরু করা হয়।

এছাড়া বিষয়টি সম্ভাব্য কোন জালিয়াতি কিনা তা নিশ্চিত হতে কৌসুলিকে ব্যাপারটি জানানো হয়।

ফিপ্রোনিল নামের ওই বিষাক্ত রাসায়নিক মানুষের শরীরে ঢুকলে কিডনি, লিভার ও থাইরয়েড গ্ল্যান্ডের ক্ষতি হতে পারে।

ফিপ্রোনিল পোল্ট্রি জাতীয় প্রাণীর চামড়ার উকুন এবং অন্যান্য কীট মারার জন্য ব্যবহার করা হয়।

এদিকে, বেলজিয়াম, জার্মানি ও নেদারল্যান্ডসের সুপারমার্কেট থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে ফিপ্রোনিলযুক্ত কোটি কোটি বিষাক্ত ডিম।

জার্মানিতে ধ্বংস করা হয়েছে এক কোটি ডিম।

জার্মান কৃষিমন্ত্রী আগামীকাল সোমবার বিষয়টি নিয়ে বেলজিয়ামের কৃষিমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনায় বসবেন বলে জানানো হয়েছে।

ইউরোপে ডিমের সবচেয়ে বড় রপ্তানিকারক দেশ নেদারল্যান্ডস।

প্রতিবছর প্রায় এক হাজার কোটির মতো ডিম উৎপাদন করে দেশটি৷ এর মধ্যে ৬৫ শতাংশই রপ্তানি হয় ইউরোপসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে।

ইতিমধ্যে দেশটির ১৮০টি মুরগির খামার সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সূত্র: বিবিসি বাংলা

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।