basic-bank

চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ রিমান্ডে থাকা আসামির আত্নহত্যা

জেলা প্রতিনিধি : চাপাইনবাবগঞ্জের নাচোল থানায় রিমান্ডে থাকা এক আসামি আত্মহত্যা করেছে। বুধবার দুপুরে থানা হাজতের টয়লেটে নিজের পরনের প্যান্ট ছিঁড়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করে । আত্মহত্যাকারী মাহফুজুর রহমান নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার জগদিশপুর মৃধাপাড়া গ্রামের আবু বাক্কার সিদ্দিকের ছেলে।

নাচোল থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন জানান, গত বুধবার নাচোল জননী কিনিকে ভুল চিকিৎসায় শিশু কন্যা নাহিদা (১৪) মারা যায়। এ ঘটনায় নাহিদার পিতা বাদী হয়ে নাচোল থানায় ভুয়া চিকিৎসক মাহফুজ আলমকে প্রধান আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ গত বৃহস্পতিবার মাহফুজ আলমকে আদালতে হাজির করে এবং রিমান্ডের আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মাহফুজকে জিঞ্জাসাবাদের জন্য নাচোল থানায় নিয়ে আসা হয়।

ওসি আরো জানান, বুধবার দুপুর সোয়া ১টার পর মাহফুজ টয়লেটে যায়। দীর্ঘ সময় ধরে মাহফুজ টয়লেট থেকে বের না হলে দায়িত্বে থাকা কনস্টেবল চাঞ্চরুল আমাকে খবর দেয়। এরপর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খান, নাচোল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মাদ নাজমুল হক, ইউএইচএ ডা. শফিকুল ইসলাম ও পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ খান ঝালুসহ স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের উপস্থিতিতে টয়লেটের দরজা ভেঙে মাহফুজের লাশ বের করা হয়।
নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ মর্গে পাঠানো হবে এবং এ ব্যাপারে থানায় একটি ইউডি মামলা দ্বায়ের হয়েছে বলে জানান ওসি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার টিএম মোজাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘ মাহফুজ টয়েলেটে যাবার পর দীর্ঘক্ষণ বের না হলে দায়িত্বরত কনস্টেবল ওসিকে খবর দেয়। ওসি আমাকে বিষয়টি জানালে বিকেল তিনটার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খান, নাচোল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাচোল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা , নাচোল পৌর মেযর , উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে টয়লেটের দরজা ভেঙ্গে লাশ বের করা হয়’। তিনি বলেন, ‘ হাজতখানার ভেতরের টয়েলেটে মাহফুজ তার ফুলপ্যান্ট খুলে তা দিয়ে দরজার বিমের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যা করে’।

উল্লেখ্য, নওগাঁর বদলগাছি উপজেলার জগদিসপুর গ্রামের আবু বাক্কার সিদ্দিক’র ছেলে মাহফুজ আলম চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে নিজেজে ‘ডা. মাসুদ রানা’ পরিচয় দিয়ে চিকিৎসা চালিয়ে আসছিল। গত বুধবার জননী ক্লিনিকে তার করা অপারেশনে এক শিশু মারা গেলে ওই ঘটনায় দায়ের হত্যা মামলায় বৃহস্পতিবার পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

Print Friendly, PDF & Email
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।